খেলা স্থগিত, আর্থিক ক্ষতির মুখে ক্লাবগুলো

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :২২ মার্চ ২০২০, ৮:৫৩ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 69 বার
খেলা স্থগিত, আর্থিক ক্ষতির মুখে ক্লাবগুলো খেলা স্থগিত, আর্থিক ক্ষতির মুখে ক্লাবগুলো

সাম্প্রতিক সময়ে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। ছোঁয়াছে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে ইতিমধ্যে প্রায় ১৪ হাজার মানুষের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বাংলাদেশে মৃত্যু হয়েছে দুইজনের। বিশ্বে আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখেরও বেশি মানুষ।

করোনাভাইরাসের প্রভাব ক্রীড়াঙ্গনেও পড়েছে। স্থবির হয়ে পড়েছে দেশের ক্রীড়াঙ্গন। করোনাভাইরাস আতঙ্কে খেলা স্থগিত হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েছে প্রিমিয়ার ফুটবল লিগের ক্লাবগুলো। বড় ক্লাবগুলো মানিয়ে নিতে পারলেও আর্থিক ক্ষতি থেকে বাঁচতে বাফুফের কাছে খেলা স্থগিতের নির্দিষ্ট সময় জানতে চেয়েছে ক্লাবগুলো।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ম্যানেজার আরিফুল ইসলাম জানান, বাফুফে আমাদের বলেছে ৩১ মার্চ পর্যন্ত লিগ স্থগিত। দুই সপ্তাহ স্থগিত থাকায় অনেক ফুটবলার ক্লাবে রয়েছেন। কিন্তু দেশে করোনাভাইরাসের যে পরিস্থিতি, তাতে স্থগিতাদেশ আরও বাড়তে পারে। সেটা আগেভাগে বললে আমাদের জন্য ভালো হতো।

তিনি আরও বলেন, ক্যাম্পে প্রতিদিন ২৫ হাজার টাকা খাবারের খরচ দিতে হয়। সবকিছু মিলিয়ে যা প্রায় ৪০ হাজারে গিয়ে ঠেকে। মাসিক খরচ হয় ৪০ লাখ টাকার মতো। আর কতদিন খেলা হবে না জানা থাকলে বিদেশি ফুটবলারদের সঙ্গে আমরা সেভাবে কথা বলব। দেশের এই পরিস্থিতি থাকলে বিদেশিদের ছেড়ে দেব। কারণ ক্লাবে ৪০ থেকে ৫০ জন লোকের থাকাটাও ঝুঁকি। তাই বাফুফের উচিত স্থগিতাদেশের সময় নির্ধারণ করা।

ব্রাদার্স ইউনিয়নের ম্যানেজার আমের খান বলেন, আমরা দুই মাসের জন্য লিগ স্থগিত চাই। শিগগির খেলা শুরুর সম্ভাবনা খুবই কম। যদিও আমরা ক্যাম্প বন্ধ করে দিয়েছি। কিন্তু বিদেশিদের বেতন তো দিতে হবে। যদি ফেডারেশন থেকে বলা হতো দুই মাসের জন্য খেলা বন্ধ, তাহলে নিশ্চিন্ত হতাম। ফুটবলারদের অর্থ নিষ্পত্তি করতে পারতাম।

উত্তর বারিধারা ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমও বলেন, আমরা বসে বসে দিনগুনছি। কবে শেষ হবে বাফুফের স্থগিতাদেশ।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।