সাংবাদিক,লেখক,দর্পণ কবীরের কবিতা “কষ্ট”

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৩ মার্চ ২০২০, ৭:২৪ পূর্বাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 67 বার
সাংবাদিক,লেখক,দর্পণ কবীরের কবিতা “কষ্ট”

কষ্ট

আমার হলুদ কষ্টগুলােকে তুমি এক ফু দিয়ে উড়িয়ে দিলে । নীল কষ্টগুলােকে দুহাতের মুঠোয় এমনভাবে নিলে ,
যেন তােমার পােষা । বেড়াল । টকটকে লাল হয়ে যাওয়া কষ্টগুলাে তােমার খোপার ফুল হলে বেশ মানাত । তুমি মাথা ঝাকিয়ে জানালে লাল কষ্টগুলােকে মাথায় তুলবে না একেবারেই । বললে , লাল কষ্ট বড় বেপরােয়া , কখনও কখনও বিপ্লবীও ! | জানি , খোঁপার ফুল যদি মনের গহিনে । চাপা নদীকে উস্কে দেয় , যে কথাগুলাে প্রশ্ন হয়ে তােমার সামনে কখনও দাঁড়ায়নি , তা মাথা তুলে দাঁড়াবে এক লহমায় । প্রশ্নবাণে তুমি হবে বিচলিত – তি । তাহলে তুমি কেনই দেবে লাল কষ্টগুলােকে প্রশ্রয় ? আমিও লাল কষ্টগুলােকে অচল পয়সার মতাে ফেলে রাখি অবহেলার ড্রয়ারে । আমার সবুজ কষ্টগুলােকে তুমি অবুঝ অলিন্দ্যে রেখে দিয়েছ বার বার । আশ্চর্য , সবুজ কষ্টগুলােও কখনও নিজের অস্তিত্ব জানান দিত না , যেন সবুজ কষ্ট হওয়াটাই ছিল ওদের ভবিতব্য ! অথচ অনেকগুলাে স্বপ্ন । ভাঙার দহনে অবুঝ কষ্টগুলাে সবুজ হয়েছে । জন্ম । নেয়া কবিতার কষ্ট ওদের মুখায়বে লেপ্টে দিন দিন হয়েছে লাবণ্যময় । আজো জানি না , তােমার সান্নিধ্যে ওরা কেন পাপড়ি হয় ? আমার সাদা কষ্টগুলাে বড় বিলাসী । তােমার মুখের হাসির মুদ্রা গায়ে জড়িয়ে হয়ে যায় । শরতের কাশবন । ভাবি , শিউলী ফুলের কাছে রেখে যাৰ তােমাকে ফিরে পাবার দাবি ।

তােমাকে যে কষ্টের কথা বলিনি , ওই কষ্টের ভারে কতবার পড়েছি নুয়ে তবু কখনও টলিনি । আজ বলছি , আমার ঘােরতর কালাে মিহিন কষ্টও আছে । কষ্টগুলাে কালাে বলেই কিনা তােমার আলােকিত জীবন , রূপের জৌলুস বা বিত্ত – বৈভবের ঝলকানি সহ্য করতে পারে না । কষ্টগুলাে । আমি যতবার তাড়াতে চেয়েছি , কক্ষপথ থেকে । নক্ষত্র ঝরে এসে কষ্টের সঙ্গে মিশে বিষন্নতার গান গেয়েছে কোরাসে । একবার ভেবেছিলাম , নক্ষত্রের কান্না জড়ান ঘােরতর কালাে কষ্টগুলাে তােমাকে দেব অর্ঘ্য করে । কষ্ট আমাকে ছাড়বে বলে অনড় পাথর হয়ে থাকে অন্তরে । আর আমার রঙহীন কষ্টগুলাে হয়েছে ঘাসফড়িং ।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে আমাদের সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।